দেশ ও বিদেশে সর্বাধিক সমাদৃত তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক টেকনো কলেজ অব ইঞ্জিনিয়ারিং আগরতলার ছয়টি নতু্ন পাঠ্যক্রমের শুভ সূচনা

নিজস্ব প্রতিবেদন

আগরতলা, সেপ্টেম্বর ১৯, : শিক্ষামন্ত্রী শ্রী রতন লাল নাথ ১৮ সেপ্টেম্বর দেশ ও বিদেশে সর্বাধিক সমাদৃত তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক আধুনিক শিক্ষা সংক্রান্ত টেকনো কলেজ অব ইঞ্জিনিয়ারিং আগরতলার ডিগ্রী ও ডিপ্লোমা লেভেল ছয়টি নতু্ন পাঠ্যক্রমের শুভ সুচনা করেছেন। রাজধানীর রবীন্দ্র শতবর্ষিক ভবনের ১ নং হলে শিক্ষামন্ত্রী এবং তথ্য ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক মন্ত্রী শ্রী সুশান্ত চৌধুরী-র উপস্থিতিতে সম্মানিত অতিথিদের দ্বারা প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন হয়। অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী তাঁর বক্তৃতায় টেকনো কলেজ অফ ইঞ্জিনিয়ারিং আগরতলার এই উদ্যোগের ভূয়সী প্রশংসা করেন। উচ্চশিক্ষা ক্ষেত্রে তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক এসব আধুনিক বিষয় গুলি নিয়ে পড়াশুনা করতে এরাজ্যের ছেলে মেয়েরা এতদিন বাইরের রাজ্যে যেতে হতো। এখন থেকে এসব বিষয় গুলি নিয়ে রাজ্যের ছেলেমেয়েরা রাজ্যেই পড়াশুনা করতে পারবে জেনে মন্ত্রী টেকনো কলেজ অফ ইঞ্জিনিয়ারিং-এর আগরতলা কর্ত্পক্ষকে ধন্যবাদ জানান।

অনুষ্ঠানে টেকনো ইন্ডিয়া গ্রুপের কো-চেয়ারপার্সন, মানসী রায় চৌধুরী অনলাইন অধিবেশনে বক্তব্য রেখেছেন এবং তিনি কলেজের শিক্ষার নতুন দিক প্রবর্তনের ক্ষেত্রে তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা বলেছেন। টেকনো কলেজ অফ ইঞ্জিনিয়ারিং আগরতলায় এবছর থেকে ডিগ্রী ও ডিপ্লোমা লেভেল ছয়টি নতু্ন পাঠ্যক্রম চালুর বিষয়ে জানাতে গিয়ে তিনি বলেন, মেসিন লার্নিং এন্ড আর্টিফিসিয়েল ইন্টে্লিজেন্স, ক্লাউড কম্পিউটিং এন্ড বিগ ডাটা, কন্সট্রাকশন অটোমেশান, মেকাট্রনিক্স, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং উইথ কম্পিউটার, ইলেক্ট্রিকেল এন্ড কম্পিউটার সায়েন্স বিষয়ে ভর্তি হতে পারবে।

অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন তথ্য ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক মন্ত্রী শ্রী সুশান্ত চৌধুরী, ত্রিপুরা বিশ্ববিদ্যালয়-এর অধ্যাপক অলক ভট্টাচার্য, এবং ত্রিপুরা রাজ্য উচ্চ শিক্ষা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক অরুণোদয় সাহা। তাদের বক্তৃতায় তারা সাম্প্রতিক প্রযুক্তিগত প্রবণতা এবং শিক্ষা ব্যবস্থার ভবিষ্যতের উন্নতির প্রয়োজনীয়তার দিকে চোখ রেখে টেকনো কলেজ অফ ইঞ্জিনিয়ারিং আগরতলায় এবছর থেকে ডিগ্রী ও ডিপ্লোমা লেভেল ছয়টি নতু্ন পাঠ্যক্রম চালুর উদ্যোগকে সময় উপয়োগী বলে অবহিত করেন ।

প্রোগ্রামের দ্বিতীয় পর্ব শুরু হয় শিক্ষা সম্মান সমারোহ দিয়ে। ত্রিপুরার বিভিন্ন জেলার বিভিন্ন স্কুল - কলেজের শিক্ষকদের শিক্ষাক্ষেত্রে মূল্যবান অবদানের জন্য অধ্যাপক অরুণোদয় সাহা এবং ডায়াসে উপস্থিত অন্যান্য গণ্যমান্য ব্যক্তিদের হাতে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। অধ্যাপক স্বপন ভৌমিক, সভাপতি, রোটারি ক্লাব অব আগরতলা, মিসেস রত্না মজুমদার, সভাপতি, রোটারি ক্লাব আগরতলা-Nature এই মহৎ অনুষ্ঠানে তাদের মূল্যবান অন্তর্দৃষ্টি বক্তব্য রেখেছেন। অনুষ্ঠানে টেকনো ইন্ডিয়া গ্রুপ-এর মহাপরিচালক ডাঃ কিশোর রায় ও পরিচালক শ্রী কুনাল গাঙ্গুলি উপস্থিত ছিলেন ।

কর্মসূচির তৃতীয় পর্বে একটি প্রযুক্তিগত সম্মেলন "উদয়ন ২.০" অনুষ্ঠিত হয়েছে এবং উদীয়মান প্রযুক্তি এবং কারিগরি শিক্ষার বর্তমান পরিস্থিতিতে এর গুরুত্বের উপর আলোচনা করা হয়। মঞ্চ থেকে এবং ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে বিশিষ্ট ব্যক্তিদের সাথে TCEA-র একটি অত্যাধুনিক অনলাইন লাইভ সেমিনারের মাধ্যমে বিভিন্ন ক্ষেত্রের বিজ্ঞ ব্যক্তিরা তাদের বক্তব্য রেখেছেন। বিশিষ্ট বক্তাদের মধ্যে ছিলেন ডাঃ সৌমিক দাস, সহযোগী অধ্যাপক, টেকনো মেইন সল্টলেক, ডাঃ দিপ্তেন্দু ভট্টাচার্য, সহযোগী অধ্যাপক, কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, এনআইটি আগরতলা, শ্রী নুরুল মোহাম্মদ জায়েদ, সহকারী অধ্যাপক, Business Administration বিভাগ, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, ঢাকা বাংলাদেশ, শ্রী মেঘদূত রায় চৌধুরী, টেকনো ইন্ডিয়া গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক, মিসেস পলিন লারাভোয়ার, টেকনো ইন্ডিয়া গ্রুপের Sustainability পরিচালক, ডাঃ ইন্দ্রনাথ চ্যাটার্জী, অধ্যাপক, কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, টংমিয়ং বিশ্ববিদ্যালয়, বুসান, দক্ষিণ কোরিয়া, শ্রী অভিজিৎ দত্ত, সিনিয়র আর্কিটেক্ট, সিনিয়র আর্কিটেক নভিদিয়া, ইউনাইটেড স্টেটস অফ আমেরিকা, ডাঃ. অনিতা সিং মাথারু, সিইও এবং এমডি, আইপিসিসি ইন্ডিয়া, বেঙ্গালুরু, ডাঃ কিশোর রায়, মহাপরিচালক, টেকনো ইন্ডিয়া গ্রুপ। অধিবেশনে উদীয়মান প্রযুক্তিগুলিকে অন্তর্ভুক্ত করার প্রয়োজনীয়তা এবং এটি কীভাবে প্রযুক্তি এবং উদ্ভাবনের ভবিষ্যতকে রূপ দিতে চলেছে সে বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে। এ ছাড়া উক্ত কর্মসূচিতে টেকনো কলেজ অব ইঞ্জিনিয়ারিং আগরতলার শিক্ষার্থীরা সুন্দর সাংস্কৃতিক পরিবেশনা উপস্থাপন করেছে।


You can post your comments below  
নিচে আপনি আপনার মন্তব্য বাংলাতেও লিখতে পারেন।  
বিঃ দ্রঃ
আপনার মন্তব্য বা কমেন্ট ইংরেজি ও বাংলা উভয় ভাষাতেই লিখতে পারেন। বাংলায় কোন মন্তব্য লিখতে হলে কোন ইউনিকোড বাংলা ফন্টেই লিখতে হবে যেমন আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ড (Avro Keyboard)। আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ডের সাহায্যে মাক্রোসফট্ ওয়ার্ডে (Microsoft Word) টাইপ করে সেখান থেকে কপি করে কমেন্ট বা মন্তব্য বক্সে পেস্ট করতে পারেন। আপনার কম্পিউটারে আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ড বাংলা সফ্টওয়ার না থাকলে নিম্নে দেয়া লিঙ্কে (Link) ক্লিক করে ফ্রিতে ডাওনলোড করে নিতে পারেন।
 
Free Download Avro Keyboard  
Name *  
Email *  
Address  
Comments *  
 
 
Posted comments
Till now no approved comments is available.