ত্রিপুরাজুড়ে কোভিড-এর ভয়াবহতা তীব্রতর হচ্ছে, জিবি-র ডেপুটি সুপারের মৃত্যু, হাসপাতালের শয্যায় ডিজিপি

নিজস্ব প্রতিবেদন

আগরতলা, এপ্রিল ২৩, : ত্রিপুরাজুড়ে কোভিড অতিমারিজনিত ভয়াবহতা ক্রমেই তীব্রতর হচ্ছে। আজ কোভিড আক্রান্ত চিকিৎসক তথা রাজ্যের একনম্বর হাসপাতালের সিনিয়র চিকিৎসক তথা জিবি'র ডেপুটী সুপার কর্ণেল (লেঃ) কিংশুক দত্তের অকাল প্রয়ান হয়েছে। তার শারীরিক অবস্থা খারাপ হওয়ায় কিছুদিন আগে তাকে এয়ার আম্বুলেন্সে কোলকাতা স্থানান্তর করা হয়েছিল। তবে দত্ত-র অকাল প্রয়ানে রাজ্যের চিকিৎসক মহলে গভীর শোলের ছায়া নেমে আসে। গোটা রাজ্যের ভয়াবহ কোভিড পরিস্থিতি মোকাবেলায় আজ মুখ্যসচিবের নেতৃত্বে সচিবালয়ে উচ্চ পর্যায়ের একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু সবচেয়ে আশ্চর্যের বিষয় হচ্ছে হাসপাতাল গুলির পরিকাঠামো ও চিকিৎসা সামগ্রীর জরুরী যোগান না করে জেলা ও পুলিশ প্রশাসন করোনা সচেতনতার নাম করে পথে ঘাটে মানুষের কাছ থেকে পরিকাঠামো আদায়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। উদয়পুরে জেলা শাসক নিজে রাস্তায় নেমে আসছেন জরিমানা আদায় করতে। অথচ সর্বত্র মন্দির, মসজিদ, রাজনৈতিক সভা, বাসন্তী পূজা, শনি পূজা চলছে বিনা বাধায় প্রশাসনের লোকেরা যেসব জায়গায় যাচ্ছেননা। উল্টো পথচারী মানুষকে গাড়ী, স্কুটার থামিয়ে হেলমেটের ভিতরেও মাস্ক নেই কেন এজন্য জরিমানা করে চলেছেন। প্রশাসনের এহেন কাজকর্মে স্বাভাবিক ভাবেই জনমনে তীব্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।।

এদিকে, আজ কোভিড সচেতনতার নাম করে আই জি এম হাসপাতালে ঢুকে চিকিৎসক ও নার্সদের যুবমোর্চার একদল ক্যাডার স্বাস্থ্য কর্মীদের সাথে দুর্ব্যবহার করেছেন বলে অভিযোগ করা হয়েছে আই জি এম হাসপাতালের হাসপাতালের চিকিৎসা কর্মীদের তরফে। নার্সদের বিশ্রাম এর জায়গায় গিয়ে পর্যন্ত মাস্ক কেন পড়েনি এজন্যে নার্সদের ধমকানোর অভিযোগ এসেছে।

অভিযোগ উঠেছে, কভিডের দ্বিতীয় ধাপের শুরুতেই রাজ্যজুড়ে একটা চরম বিশৃংখলতার সৃষ্টি হয়েছে। কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় ও মাধ্যমিক বোর্ড পরীক্ষা , স্কুলের পরীক্ষা চালু রাখার চেষ্টা করছে রাজ্য প্রশাসন। অথচ চাকুরি পরীক্ষা দিতে এসে বহিরাজ্যের ৩১ জন করোনা রোগী ধরা পড়েছে। তাদের পঞ্চায়েত রাজ ট্রেনিং ইনস্টিটিউটে ঠিকঠাক ভাবে খাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়নি অভিযোগ করে তারা পালিয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ২৪ ঘন্টায় এক লাফে ৪০ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন৷ সাম্প্রতিক কালে সারা বিশ্বের নিরিখে করোনা আক্রান্তের সর্বোচ্চ বৃদ্ধি আজ গোটা দেশে৷তার সমান পাল্লা দিয়ে রাজ্যেও চলছে করোনা আক্রান্তের বাড়বাড়ন্ত। ফলে, সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫১৮ জন৷ এদিকে কিছুটা স্বস্থি মিলল সুস্থের সংখ্যা নিরিখে, ৪৫ জন গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়েছেন৷ আজ স্বাস্থ্য দফতরের মিডিয়া বুলেটিনে জানিয়েছে, গত ২৪ ঘন্টায় ১৪২২ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে৷ তার মধ্যে আরটি-পিসিআর ৩০ এবং রেপিড এন্টিজেন নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১৩৯২ জনের৷ তাতে, আরটি-পিসিআর ০৩ জনের এবং রেপিড এন্টিজেন-এ ৩৭ জনের দেহে করোনা-র সংক্রমণ মিলেছে৷আজ স্বাস্থ্য দফতরের মিডিয়া বুলেটিন অনুযায়ী রাজ্যে মৃত্যুর সংখ্যা নেই।


You can post your comments below  
নিচে আপনি আপনার মন্তব্য বাংলাতেও লিখতে পারেন।  
বিঃ দ্রঃ
আপনার মন্তব্য বা কমেন্ট ইংরেজি ও বাংলা উভয় ভাষাতেই লিখতে পারেন। বাংলায় কোন মন্তব্য লিখতে হলে কোন ইউনিকোড বাংলা ফন্টেই লিখতে হবে যেমন আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ড (Avro Keyboard)। আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ডের সাহায্যে মাক্রোসফট্ ওয়ার্ডে (Microsoft Word) টাইপ করে সেখান থেকে কপি করে কমেন্ট বা মন্তব্য বক্সে পেস্ট করতে পারেন। আপনার কম্পিউটারে আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ড বাংলা সফ্টওয়ার না থাকলে নিম্নে দেয়া লিঙ্কে (Link) ক্লিক করে ফ্রিতে ডাওনলোড করে নিতে পারেন।
 
Free Download Avro Keyboard  
Name *  
Email *  
Address  
Comments *  
 
 
Posted comments
Till now no approved comments is available.