করোনা মোকাবেলায় ২২ এপ্রিল থেকে রাজ্যে চালু হচ্ছে নাইট কারফিউ

নিজস্ব প্রতিবেদন

আগরতলা, এপ্রিল ২১, : আগামীকাল ২২ এপ্রিল থেকে আগরতলা পৌর কর্পোরেশন এলাকায় রাত ১০ টা থেকে সকাল ৫ টা পর্যন্ত করোনার নাইট কারফিউ আরোপ করা হয়েছে। চিকিৎসা এবং অন্যান্য জরুরি প্রয়োজন এবং স্বাস্থ্য, পুলিশ, সুরক্ষা, বিদ্যুৎ সরবরাহ পানীয় জলের সরবরাহ ইত্যাদির কাজে যুক্তরা এই বিধি নিষেধের আওতার বাইরে থাকবেন।

একই সাথে স্কুল, কলেজের সব ধরনের পরীক্ষা স্থগিত রাখতে বলা হয়েছে। গুরুতর কোভিড পরিস্থিতি বিবেচনায়, চাকরি সম্পর্কিত লিখিত ও শারীরিক পরীক্ষাও স্থগিত থাকবে। এর মধ্যে জনশক্তি ও কর্মসংস্থান বিভাগের যৌথ নিয়োগ বোর্ডের লিখিত পরীক্ষা এবং টিএস আর- এর আইআর ব্যাটালিয়নের শারীরিক পরীক্ষাও স্হগিত থাকবে। সংশ্লিষ্ট বিভাগ গুলি এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করবে।

তাছাড়া, সভা সমাবেশেও নিষেধাজ্ঞা থাকবে। নিষেধাজ্ঞা গুলি হল-

১. বন্ধ হলে ক্ষমতার সর্বাধিক ৫০% জনকে বসানো যাবে। সামাজিক, সাংস্কৃতিক, বিনোদন ইভেন্টে ১০০ জন ব্যক্তির সিলিং সহ রাজনৈতিক সমাবেশের জন্য ডিএম থেকে অনুমতি নিতে হবে। উন্মুক্ত স্থানে, ২০০ জনের সিলিং সহ স্থল / স্থানের আকারের ভিত্তিতে উচ্চতর সংখ্যার অনুমতি দেওয়া যেতে পারে। সভাস্হলে

ফেস মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং হ্যান্ড ওয়াশ বা স্যানিটাইজার ব্যাবহার করা বাধ্যতামূলক।

২. বিবাহ, জন্মদিন এবং অন্যান্য সামাজিক কার্যক্রমে সরকারী বা বেসরকারী জায়গায় সর্বাধিক ১০০ জনকে অনুমতি দেওয়া হবে।

৩. সর্বাধিক ২০ জন ব্যক্তিকে জানাজায় / শেষকৃত্যের অনুষ্ঠান সম্পর্কিত সমাবেশে অনুমতি দেওয়া হবে।

৪. মুভি হল গুলি / মাল্টিপ্লেক্স গুলি ৫০% ক্ষমতাতে চালু থাকবে।

৫. ৬৫ বছর বয়সের উপরের ব্যক্তিদের প্রয়োজনীয় পরিষেবা গুলির জন্য প্রয়োজন না হলে বাড়ির অভ্যন্তরে থাকতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। অন্যদের অপ্রয়োজনীয় চলাচল কমাতে এবং জনাকীর্ণ স্থান গুলি এড়াতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

সমস্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট উপরোক্ত পদক্ষেপগুলি কঠোরভাবে প্রয়োগ করবেন। এই পদক্ষেপগুলি লঙ্ঘনকারী যে কোনও ব্যক্তি বিপর্যয় পরিচালন আইন, ২০০৫ এর ধারা ৫১ এর বিধান অনুসারে, এবং প্রযোজ্য অন্যান্য আইনী বিধান অনুযায়ী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দায়বদ্ধ হবে। সরকার এপিডেমিক ডিজিজ অ্যাক্ট ১৯৮৭ এর অধীনে এই বিধি নিষেধ আরোপ করেছে।

এই বিধিবিধান অনুসারে, রাজ্য সরকার নিম্নলিখিত আরও কিছু বিধিনিষেধ আরোপ করেছে:

১. জনসাধারণের / কাজের জায়গায় বা ভ্রমনের সময় কাপড়ের মুখোশ / ফেস কভার বাধ্যতামূলক।

২. সরকারী ও বেসরকারী পরিবহনে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করা।

৩. যথাযথ সামাজিক দূরত্বের ব্যবস্থা নিশ্চিত করার পরে এবং দোকানদারদের নিয়ন্ত্রণে স্বেচ্ছাসেবীদের মাধ্যমে অতিরিক্ত ভিড় এড়িয়ে দোকান পরিচালনা করতে হবে।

এসব নিয়ম লঙ্ঘনের জন্য দন্ড বা জরিমানা নিম্নরূপ: ফেস মাস্ক না পড়লে

জরিমানা ২০০/ - প্রথম লঙ্ঘন এবং পরবর্তী লঙ্ঘনের জন্য ৪০০/ - টাকা জরিমানা। যানবাহনে দুই গজ দূরত্ব না বজায় রাখলে জরিমানা ১০০০ টাকা।


You can post your comments below  
নিচে আপনি আপনার মন্তব্য বাংলাতেও লিখতে পারেন।  
বিঃ দ্রঃ
আপনার মন্তব্য বা কমেন্ট ইংরেজি ও বাংলা উভয় ভাষাতেই লিখতে পারেন। বাংলায় কোন মন্তব্য লিখতে হলে কোন ইউনিকোড বাংলা ফন্টেই লিখতে হবে যেমন আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ড (Avro Keyboard)। আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ডের সাহায্যে মাক্রোসফট্ ওয়ার্ডে (Microsoft Word) টাইপ করে সেখান থেকে কপি করে কমেন্ট বা মন্তব্য বক্সে পেস্ট করতে পারেন। আপনার কম্পিউটারে আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ড বাংলা সফ্টওয়ার না থাকলে নিম্নে দেয়া লিঙ্কে (Link) ক্লিক করে ফ্রিতে ডাওনলোড করে নিতে পারেন।
 
Free Download Avro Keyboard  
Name *  
Email *  
Address  
Comments *  
 
 
Posted comments
Till now no approved comments is available.