পঞ্চদশ কমিশনের অর্থ মঞ্জুর হলেই কর্মচারীদের মিলবে বকেয়া, ভাতা হবে ২০০০: মুখ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদন

আগরতলা, ফেব্রুয়ারি ১৩, : পঞ্চদশ অর্থ কমিশনে প্রস্তাবিত অর্থ রাশি হাতে এলেই ভিশন ডকুমেন্টে দেয়া সমস্ত প্রতিশ্রুতি পূরণ করা হবে। কর্মচারীদের সপ্তম বেতন কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী দেয়া হবে এরিয়ার সহ যাবতীয় সুযোগ-সুবিধা। সামাজিক ভাতাও করা হবে ২০০০ টাকা। বৃহস্পতিবার রানীর বাজারে লংতরাই ত্রিপুরা স্টেট অ্যাাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে একথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী শ্রী বিপ্লব কুমার দেব।

তিনি বলেন দল-মতের ঊর্ধ্বে উঠে সমস্ত সুযোগ-সুবিধা যাতে সবাই পায়, সেই লক্ষ্যে সরকার ১০০% সাফল্য পেতে কাজ করছে।

অনুষ্ঠানে রানীর বাজার এলাকার বিশাল সংখ্যক মানুষের উপস্থিতিকে উদ্দেশ্য করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, খুব কম সময়ের মধ্যেই রানীর বাজারে তৈরি করা হবে মহকুমা হাসপাতাল। কলেজ নির্মাণেও জমির বন্দোবস্ত করেছে সরকার। মুখ্যমন্ত্রী বলেন রাজ্যে নতুন সরকার আসার পর প্রত্যেকটি দপ্তরকেই নতুনভাবে সাজিয়ে কাজ করার চেষ্টা করছে সরকার।

এই সময়ে ক্রীড়া ক্ষেত্রকেও গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। ১১০০ ক্লাবকে দেয়া হয়েছে সাড়ে আট হাজার টাকা মূল্যের ক্রীড়া সামগ্রী। যাতে গ্রামের ছেলে-মেয়েরা খেলাধুলার প্রতি মনোযোগী হয়। এতে ড্রাগসের নেশা থেকে ফিরে আসবে যুবসমাজ।

এদিনও মুখ্যমন্ত্রী গুণগত শিক্ষার প্রসারে সরকারের ২১ টি নতুন পদক্ষেপের কথাও তুলে ধরেন। গুনগতমান সম্পন্ন শিক্ষার কথা বলতে গিয়ে তিনি ১,১৬০০০ টেট পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১২০০ কৃতকার্য হওয়ার বিষয়টিও টেনে আনেন তিনি।

ড্রাগসের বিরুদ্ধে নিজের অবস্থানকে আরো মজবুত করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন "প্রত্যেক মা বাবা চায় তাঁর ছেলে মেয়ের ফুটবলের প্রতি নেশা হোক, ক্রিকেটের প্রতি নেশা হোক, অ্যাথলেটিক্সের প্রতি নেশা হোক "। তাকে উৎসাহিত করতেই রাজ্যেতর ক্রীড়া দপ্তর কাজ করে যাচ্ছে। এই প্রসঙ্গে তিনি অনূর্ধ্ব সতেরো রাজ্য ফুটবল মহিলা ও পুরুষ দলের দারুন সাফল্যের কথাও উল্লেখ করেন। বর্তমান সরকারের প্রচেষ্টাতেই ক্রীড়াক্ষেত্রে রাজ্যে আমূল পরিবর্তন এসেছে বলেও অভিমত ব্যক্ত করেন মুখ্যমন্ত্রী।

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ক্রীড়া মন্ত্রী শ্রী মনোজ কান্তি দেব, বিধায়ক শ্রী সুশান্ত চৌধুরী সহ অন্যান্যরা।


You can post your comments below  
নিচে আপনি আপনার মন্তব্য বাংলাতেও লিখতে পারেন।  
বিঃ দ্রঃ
আপনার মন্তব্য বা কমেন্ট ইংরেজি ও বাংলা উভয় ভাষাতেই লিখতে পারেন। বাংলায় কোন মন্তব্য লিখতে হলে কোন ইউনিকোড বাংলা ফন্টেই লিখতে হবে যেমন আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ড (Avro Keyboard)। আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ডের সাহায্যে মাক্রোসফট্ ওয়ার্ডে (Microsoft Word) টাইপ করে সেখান থেকে কপি করে কমেন্ট বা মন্তব্য বক্সে পেস্ট করতে পারেন। আপনার কম্পিউটারে আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ড বাংলা সফ্টওয়ার না থাকলে নিম্নে দেয়া লিঙ্কে (Link) ক্লিক করে ফ্রিতে ডাওনলোড করে নিতে পারেন।
 
Free Download Avro Keyboard  
Name *  
Email *  
Address  
Comments *  
 
 
Posted comments
Till now no approved comments is available.