৪৫ কোটি ব্যয়ে আধুনিক বাসপোর্ট হচ্ছে উদয়পুরে

নিজস্ব প্রতিবেদন

আগরতলা, জুন ২৩, : অনেকটাই বিমানমন্দরের আদলে একটি অত্যাধুনিক বাসস্ট্যাণ্ড তৈরী হবে উদয়পুরে। এর ইংরেজী আধুনিক নাম দেওয়া হয়েছে বাসপোর্ট৷ সারাদেশে পিপিই মডেলে প্রায় আড়াই হাজার এমন বাসপোর্ট নির্মানের লক্ষ্যমাত্রা ধার্য করা হয়েছিলো ২০১৮ সালে৷

জানাগেছে, শ্রীনিতিন গড়কড়ির স্বপ্ন রয়েছে যে ভারতবর্ষেও লণ্ডণ ট্রান্সপোর্ট অথরিটির ধাঁচে বাসস্ট্যাণ্ড গুলিকে অত্যাধুনিক করে তোলার৷ দেশের অন্য অনেক জায়গায় কাজও শুরু হয়েছে এই মর্মে৷

এই অনুযায়ী, এরাজ্যেও গত ৯ মার্চ ২০১৮ সালে নবগঠিত ভারতীয় জনতা পার্টির সরকার কেন্দ্রের কাছে এই অত্যাধুনিক বাসপোর্ট নির্মানের জন্য দাবী জানায়৷ রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী শ্রীপ্রণজিৎ সিংহ রায় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী শ্রীবিপ্লব কুমার দেব - এর পরামর্শ অনুযায়ী পরিবহন মন্ত্রী হিসাবে যখনই দিল্লীতে গেছেন তখনই এই বিষয়ে মন্ত্রকে রাজ্যের দাবী তুলে ধরেছেন৷ এরই অঙ্গ হিসেবে কেন্দ্রীয় সরকারের এক বিশেষজ্ঞ দল রাজ্যে এসে সম্ভাবনাময় বেশ কয়েকটি জায়গা পরিদর্শন করে উদয়পুরে আধুনিক একটি বাসপোর্ট তেরীর কথা বলে গেছেন৷

জানাগেছে, সবটা প্রকল্পই যাতে সুচারুভাবে রূপায়িত হতে পারে তার জন্য রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী শ্রীবিপ্লব কুমার দেবের নির্দেশ এবং পরামর্শক্রমে তদারকি করছেন পরিবহন মন্ত্রী শ্রীপ্রণজিৎ সিংহ রায় নিজে৷ গতকাল আগরতলায় মুখ্যমন্ত্রীর পৌরহিত্যে এবং পরিবহন মন্ত্রী সহ দপ্তরের আধিকারিকদের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত এক পর্যালোচনা বৈঠকে রাজ্যের প্রথম বাসপোর্ট নির্মানের সিদ্ধান্ত চুড়ান্ত হয়৷ এই প্রকল্পে আনুমানিক ব্যয় হবে ৪৫ কোটি টাকা৷

প্রসঙ্গত, পয়তাল্লিশ কোটি টাকা ব্যয়ে রাজ্যের প্রথম বাসপোর্টটি নির্মিত হতে যাচ্ছে উদয়পুরে শ্রীশ্রীমাতা ত্রিপুরাসুন্দরীর মন্দিরের কাছে রাজারবাগে যে বাস স্ট্যাণ্ড আছে সেখানে। কেন্দ্র সরকারের কাছে যে DPR (Detailed Project Report) পাঠানো হয়েছিলো সম্প্রতি এটা দিল্লীতেও অনুমোদিত হয়েছে এবং কেন্দ্র সরকারের তরফে এজন্য রাজ্যের জন্য বরাদ্দ হয়েছে পয়তাল্লিশ কোটি টাকা৷ বেশ কয়েক শ' গাড়ী থাকতে পারবে একই ছাদের তলায় এবং এই গাড়ী গুলি সহ সমগ্র স্ট্যাণ্ডটাকে রক্ষনাবেক্ষণ করার কাজে নিয়োজিত হবে অনেকে৷ অর্থাৎ কর্মসংস্থান হবে বহু ছেলেমেয়ের৷ গড়ে উঠবে ডিজিটাল মনিটরিং ইউনিট৷ অনেক বেশী নিরপাত্তার চাদরে আসবে রাজারবাগ সহ আশেপাশের এলাকাগুলি৷

জানাগেছে, এই বাসপোর্ট নির্মিত হলে স্ট্যাণ্ড বা নিকটবর্তী এলাকার যে যানবাহনের ভীর সেটা যেমন অনেক বেশী নিয়ন্ত্রিত থাকবে, তেমনি বিমানবন্দরের মতোই বাসস্ট্যাণ্ডেও বাসযাত্রীদের জন্য থাকবে লাউঞ্জ, Free WiFi, বিলাসবহুল আগমন-প্রত্যাগমন, আধুনিক ক্যাফেটেরিয়া, শপিং জোন, পার্কিং স্লট, লাগেজরুম, টয়লেট, বিশ্রামকক্ষ সহ উন্নত মানের টিকিট কাউন্টার৷


You can post your comments below  
নিচে আপনি আপনার মন্তব্য বাংলাতেও লিখতে পারেন।  
বিঃ দ্রঃ
আপনার মন্তব্য বা কমেন্ট ইংরেজি ও বাংলা উভয় ভাষাতেই লিখতে পারেন। বাংলায় কোন মন্তব্য লিখতে হলে কোন ইউনিকোড বাংলা ফন্টেই লিখতে হবে যেমন আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ড (Avro Keyboard)। আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ডের সাহায্যে মাক্রোসফট্ ওয়ার্ডে (Microsoft Word) টাইপ করে সেখান থেকে কপি করে কমেন্ট বা মন্তব্য বক্সে পেস্ট করতে পারেন। আপনার কম্পিউটারে আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ড বাংলা সফ্টওয়ার না থাকলে নিম্নে দেয়া লিঙ্কে (Link) ক্লিক করে ফ্রিতে ডাওনলোড করে নিতে পারেন।
 
Free Download Avro Keyboard  
Name *  
Email *  
Address  
Comments *  
 
 
Posted comments
Till now no approved comments is available.