লকডাউনের ছাড় দেওয়ার দ্বিতীয় দিনে মঙ্গলবার রাজধানীর জীবনযাত্রা প্রায় স্বাভাবিক হয়ে উঠেছে

নিজস্ব প্রতিবেদন

আগরতলা, এপ্রিল ২১, : কিছু কিছু ক্ষেত্রে লকডাউনের বিধিনিষেধের ছাড় দেওয়ার দ্বিতীয় দিনে আজ মঙ্গলবার রাজধানীর জীবনযাত্রা প্রায় স্বাভাবিক হয়ে উঠেছে। আজ শহরে গতকালের মতো বাইকধারী যুবকদের তান্ডব তেমন ছিল না। তান্ডব থাকবেই বা কিভাবে? পুলিশী ব্যবস্হা যেমন জোরদার করা হয়েছে তেমনি ট্রাফিক পুলিশ ও বাড়ানো হয়েছে। উন্মত্ততা করার কোন সুযোগ নেই। পথচারী যারা তাঁরা ও নিয়ন্ত্রিত ভাবে চলাচল করছেন, বাজারে যাচ্ছেন,যাচ্ছেন মেডিক্যাল ষ্টোরে। এদিকে কুরিয়ার সার্ভিসও আজ থেকেই শুরু হয়েছে। সুদূর ব্যাঙ্গালোর থেকে আসা পন্য সামগ্রী ডেলিভারী দেয়া শুরু করেছে ওরা। এটা এক ধরনের স্বাভাবিকতা বলা চলে। যে যে দোকানপাট খোলা যায় তাঁরা ও দোকান খুলেছেন। এতে এরা আনন্দিত। তবে লকডাউন থাকায় যে ওদের আর্থিক ক্ষতি হয়েছে তাতে ওঁরা বিমর্ষ ও বটে। সবারই প্রশ্ন কবে উঠবে লকডাউন?

বাজার ও বসেছে প্রায় সবকটি। তবে পুলিশের সতর্ক নজরদারি রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। সোমবার তো প্রথমদিন লকডাউনের বিধি ভঙ্গ করায় পুলিশ প্রায় ৭০জনকে দিনভর আটক করে রেখেছিল। পুলিশের গৃহীত ব্যবস্হায় একটা মনস্তাত্ত্বিক চাপ সৃষ্টির ক্ষেত্রে সহায়ক হয়েছে।

আজ দুপুর পর্যন্ত স্বল্প আয়ী রিকশা শ্রমিকরাও পথে বের হয়েছে। অভাব কিন্তু ওদের গ্রাস করছে। অভাব ওদের প্রায় পাগল করে দিয়েছে বলা চলে। কজন রিকসা শ্রমিক তাদের রুদ্ধ আয়ের কথা বলেছেন। আগামী কিছুদিন এদের কিভাবে চলবে এই চিন্তা ওদের গ্রাস করে চলেছে। গতকাল রাতে মহারাজগঞ্জে ভিনরাজ্যের প্রায় ৫০ টির মত পন্যবাহী ট্রাক এসে পৌঁছেছে। আজ ভোর থেকে আনলোডিং শুরু হয়ে যায়। কিন্তু পন্যের দাম সেই আকাশ ছোঁয়া। শাকসবজির দাম ও অনেকটাই বেড়ে গেছে।ভেন্ডারদের বক্তব্য আমদানি নেই। বাধ্য হয়ে বেশী দাম দিয়ে ওদের কিনতে হয়েছে। লকডাউনের প্রভাবে আগামীদিনে রুটি, রুজির সংকট দেখা দেবেই। এখন থেকেই তার আঁচ পাওয়া যাচ্ছে। সরকারী প্যাকেজ তো চাহিদার তুলনায় খুবই কম । এটাতো সিন্ধুতে বিন্দুর মত।

এদিকে কলেজটিলা, কামারপুকুর জলাশয় সংস্কারের কাজ ও অব্যাহত রয়েছে। তবে কাজের গুনগত মান নিয়ে এলাকাবাসী প্রশ্ন উঠিয়েছেন।


You can post your comments below  
নিচে আপনি আপনার মন্তব্য বাংলাতেও লিখতে পারেন।  
বিঃ দ্রঃ
আপনার মন্তব্য বা কমেন্ট ইংরেজি ও বাংলা উভয় ভাষাতেই লিখতে পারেন। বাংলায় কোন মন্তব্য লিখতে হলে কোন ইউনিকোড বাংলা ফন্টেই লিখতে হবে যেমন আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ড (Avro Keyboard)। আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ডের সাহায্যে মাক্রোসফট্ ওয়ার্ডে (Microsoft Word) টাইপ করে সেখান থেকে কপি করে কমেন্ট বা মন্তব্য বক্সে পেস্ট করতে পারেন। আপনার কম্পিউটারে আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ড বাংলা সফ্টওয়ার না থাকলে নিম্নে দেয়া লিঙ্কে (Link) ক্লিক করে ফ্রিতে ডাওনলোড করে নিতে পারেন।
 
Free Download Avro Keyboard  
Name *  
Email *  
Address  
Comments *  
 
 
Posted comments
Till now no approved comments is available.