বারোটি কুকুর দুইজন ব্যক্তি পুলিশের জালে আটক

নিজস্ব প্রতিবেদন

আগরতলা, ডিসেম্বর ২৮, ২০১৯: আগরতলা, ডিসেম্বর ২৮, ২০১৯: কাঞ্চনপুর থানার অধীনে জয়শ্রী আউটপোস্ট পাশে ওসি পরিতোষ দাস নেতৃত্বে লালযুরি রোডে সন্দেহমূলক আল্টো TR-03H-0294 গাড়িটি খুব দ্রুত বেগে যাচ্ছিল সিগন্যাল দেন থামানোর পরে চেকিং করে 12 টি কুকুর পাওয়া যায় ও গাড়িতে দুজন ব্যক্তি ছিলেন চালক বিজয় জমাতিয়া বয়স 27 সঙ্গে ছিলেন নেহান জয় রিয়াং বয়স 25 এই গাড়িটি আসছিল জিরানিয়া থেকে দাম ছড়া যাওয়ার উদ্দেশ্যে লাল চুড়িতে ধরা পড়ে যায়! ওসি পরিতোষ দাস জানায় কুকুর প্রভুভক্ত প্রাণী গাড়ি বোঝাই করে নিয়ে ব্যবসা করা অবৈধ. তাই গাড়ি চালক এবং nehen joy Reang কে সহ দুইজনকে কাঞ্চনপুর মহকুমা আদালতে পাঠিয়ে দেন


You can post your comments below  
নিচে আপনি আপনার মন্তব্য বাংলাতেও লিখতে পারেন।  
বিঃ দ্রঃ
আপনার মন্তব্য বা কমেন্ট ইংরেজি ও বাংলা উভয় ভাষাতেই লিখতে পারেন। বাংলায় কোন মন্তব্য লিখতে হলে কোন ইউনিকোড বাংলা ফন্টেই লিখতে হবে যেমন আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ড (Avro Keyboard)। আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ডের সাহায্যে মাক্রোসফট্ ওয়ার্ডে (Microsoft Word) টাইপ করে সেখান থেকে কপি করে কমেন্ট বা মন্তব্য বক্সে পেস্ট করতে পারেন। আপনার কম্পিউটারে আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ড বাংলা সফ্টওয়ার না থাকলে নিম্নে দেয়া লিঙ্কে (Link) ক্লিক করে ফ্রিতে ডাওনলোড করে নিতে পারেন।
 
Free Download Avro Keyboard  
Name *  
Email *  
Address  
Comments *  
 
 
Posted comments
Posted OnNameEmailComment
28.12.2019sanjoy roy[email protected]I convey my sincere thanks and good wishes to the police for this noble action . Actually the dog lovers are very much frightened with their dogs in home and they remain tensed if they do not find the dogs in home for some hours or more. We are happy to note that some evil doers of the society could be caught red handed. They need to be booked under the Criminal Act and punished stringently if animals, particularly, the dogs are to be saved from the brutality of such people. Not only the street Dogs are safe nowadays but the domestic dogs are also very unsafe due to these money-hungry people who catch the dogs and export to the neighbouring states and making money without any investment. These people are no less than enemies of the society. Dog catching and exporting have become a lucrative option for this type of mercenaries . Laws should be very strict for these people.