ঘনবসতি এলাকায় বিলাতি মদের দোকান বসানো নিয়ে মহিলারা ক্ষুদ্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদন

আগরতলা, মার্চ ১০, : কাঞ্চনপুরের বাজা‌র এলাকা এবং কাঞ্চনপুর হাই স্কুলে যাওয়ার মেইন রাস্তায় যেখা‌নে ৩০ মিটারের ম‌ধ্যেব গ্রামীণ ব্যাঙ্ক, ইউনাইটেড ব্যাঙ্ক, আর্ট স্কুল এবং রেশন দোকান, সেখা‌নে বিলাতি মদের দোকান বসানো নিয়ে ম‌হিলারা ক্ষুদ্ধ । এলাকার ম‌হিলা‌দের দাবী যে কো‌নো সময় স্কুল পড়ুয়া চাত্রছাত্রী‌দের বিপদ ও ঘট‌তে পা‌রে। হাসপাতালের দ্বিতীয় গেটে ও বিলাতি মদের দোকান এই ব্যাপারগুলি প্রশাসনের নজরে কিছুই আসে না বলে জানান কাঞ্চনপুরের জনতা ।এই ব্যাপারে কাঞ্চনপুর এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে লিখিতভাবে জেলাশাসক ও মহকুমা শাসককে জানানো হয় এবং কাঞ্চনপুর থানাতেও লিখিতভাবে দেওয়া হয়েছে। দেখা যায় কাঞ্চনপুরে একই ব্যক্তি অনেক জনের নামে বিলাতি মদের দোকান লাইসেন্স নিয়ে উনি একাই ব্যবসা করে চলে যাচ্ছেন এলাকাবাসীর বক্তব্য এব্যাপারে যাতে মুখ্যমন্ত্রীর নজর দেন তাহলে অনেক উপকৃত হবে বলে জানান।

ওই ব্যক্তি ২ টি মদের দোকানের মালিক কিছুদিন আগে নাকি নেতাজি নগর স্কুল রোডে একটি কাউন্টার খোলার চেষ্টা করেছিল কিন্তু এলাকাবাসী বাধা দেওয়ায় এখন অব্দি বন্ধ আছে। নেতাজি নগর এলাকায় যেগুলি মদের দোকান হচ্ছে সবগুলি কাঞ্চনপুর বাজারের পাশে, হাসপাতালের পাশে স্কুলে যাওয়ার রোডের পাশে। এলাকাবাসীর বক্তব্য অন্ততপক্ষে কাঞ্চনপুর প্রপার থেকে ৫ কিলোমিটার দূরত্ব যাতে এগুলো করা হয় সেজন্য আজ মহিলারা থানায় ওসি পরিতোষ দাস এবং এসডিএম চাঁদনী চাঁদকেও লিখিতভাবে জানান।


You can post your comments below  
নিচে আপনি আপনার মন্তব্য বাংলাতেও লিখতে পারেন।  
বিঃ দ্রঃ
আপনার মন্তব্য বা কমেন্ট ইংরেজি ও বাংলা উভয় ভাষাতেই লিখতে পারেন। বাংলায় কোন মন্তব্য লিখতে হলে কোন ইউনিকোড বাংলা ফন্টেই লিখতে হবে যেমন আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ড (Avro Keyboard)। আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ডের সাহায্যে মাক্রোসফট্ ওয়ার্ডে (Microsoft Word) টাইপ করে সেখান থেকে কপি করে কমেন্ট বা মন্তব্য বক্সে পেস্ট করতে পারেন। আপনার কম্পিউটারে আমার বাংলা কিংবা অভ্রো কী-বোর্ড বাংলা সফ্টওয়ার না থাকলে নিম্নে দেয়া লিঙ্কে (Link) ক্লিক করে ফ্রিতে ডাওনলোড করে নিতে পারেন।
 
Free Download Avro Keyboard  
Name *  
Email *  
Address  
Comments *  
 
 
Posted comments
Till now no approved comments is available.